অধ্যাপক ফারুকের পাশে সাধারন মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

গবেষণায় দেশের ৫টি কোম্পানির ৭টি ব্রান্ডের দুধে এন্টিবায়োটিকের উপস্থিতির তথ্য প্রকাশ করা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বায়োমেডিকেল রিসার্স সেন্টারের সাবেক পরিচালক ও ঔষধ প্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক আ ব ম ফারুককে হয়রানী করা হচ্ছে অভিযোগ এনে তাকে হয়রানী বন্ধে মানববন্ধন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও সাধারন মানুষ। দুপুরে (১৪জুলাই) রাজু ভাষ্কর্যের সামনে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

‘নিরাপদ খাদ্য চাই, ফারুক স্যারের পাশে দাঁড়াই’ ব্যানারে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তারা অধ্যাপক ফারুককে হয়রানি না করার অনুরোধ জানানোর পাশাপাশি যারা তাকে হয়রানি করছে তাদের বিচার দাবি করেন।
মানববন্ধন থেকে বক্তারা বলেন, “আমরা ১৭ কোটি বাঙ্গালি। যেখানে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন সোনার বাংলা গড়ার জন্য, সেখানে একজন সচিব ফারুক স্যারকে সত্য প্রকাশের জন্য হুমকি দেওয়া হচ্ছে। একজন দায়িত্ববান মানুষ হিসেবে তিনি দুধে ক্ষতিকর এন্টিবায়োটিক থাকার কথা জনগনকে জানিয়েছেন, যার জন্য তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু তার পাশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দাঁড়াচ্ছে না। আমরা এই মহান মানুষটির পাশে আছি সেই সাথে যারা তাকে হুমকি দিচ্ছে তাদের বিচার দাবি করছি।”

‘নিরাপদ খাদ্য চাই, ফারুক স্যারের পাশে দাঁড়াই’ ব্যানারে মানববন্ধনটির আয়োজন করেন সাধারন মানুষ ও শিক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্য, দেশের ৫টি কোম্পানির ৭টি ব্রান্ডের পাস্তরিত ও অপাস্তরিত দুধে ক্ষতিকারক এন্টিবায়োটিকের উপস্থিতি পায় ঢাবির একদল গবেষক। গবেষণা দলটির নেতৃত্বে ছিলেন অধ্যাপক ফারুক। গবেষক দলটি প্রথমবার পরিক্ষা করে দুধে ক্ষতিকারক এন্টিবায়োটিক পাওয়ার পর দ্বিতীয় দফায় আবার পরিক্ষা করেও তারা দুধে এন্টিবায়োটিকের উপস্থিতি পান। বরং প্রথমবারের তুলনায় দ্বিতীয়বার দুধে এন্টিবায়োটিকের উপস্থিতি আরও বেশি পান তারা। এদিকে এই গবেষণা তথ্য প্রকাশ করার পর গবেষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

এন/এম/শিরোনামবিডি

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: