অবশেষে আনুষ্ঠানিকভাবে দেখা মিললো সু চির

শিরোনাম ডেস্ক

গ্রেপ্তার হওয়ার পরে প্রথমবারের মতো আনুষ্ঠানিকভাবে দেখা গেল মিয়ানমারের গৃহবন্দী নেত্রী অং সান সু চিকে। ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের সেনা গ্রেপ্তার করেছিল অং সান সু চিকে। তারপর থেকে সু চির আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

প্রায় এক মাস পরে তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে দেখতে পাওয়া গেল। তবে সরাসরি না হলেও ভিডিও কনফারেন্সে মিলেছে তার দেখা। সোমবার আদালতে তার শুনানি ছিল। সেখানে ভিডিও কনফারেন্সে সু চিকে দেখা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্যমতে, তার শরীর সুস্থ আছে। তার উপর অত্যাচারের কোনো বিষয় সু চি জানাননি। তবে এদিন আদালতে তার বিরুদ্ধে আরও দুইটি নতুন অভিযোগ করা হয়েছে। কবে তিনি মুক্তি পেতে পারেন, সে বিষয়েও এখনো পর্যন্ত কিছু জানা যায়নি।

পরে জানা যায়, সু চিকে নেপিদোতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। দীর্ঘ সেনা শাসনকালে এক সময়ে এই শহরটিকেই রাজধানী হিসেবে তৈরি করেছিলো সেনাশাসকরা। এখনো এই শহরে উর্দি পরা জেনারেলদের প্রভাবই বেশি। পুরো শহরটিকে কার্যত ঘিরে রেখেছে সেনা সদস্যরা।

এর আগে সু চি-র বিরুদ্ধে দুইটি মামলা করা হয়েছিলো। মামলা তুটির মধ্যে ছিলো- আইন ভেঙে ওয়াকিটকি বিদেশে রপ্তানি করা ও করোনাকালে দেশের প্রাকৃতিক দুর্যোগের আইন ভাঙা। সোমবার তার বিরুদ্ধে আরও দুইটি নতুন ধারায় মামলা করা হয়েছে। তার মধ্যে একটি কার্যত দেশদ্রোহের শামিল। বলা হয়েছে, তিনি এমন লেখা প্রচার করেছেন, যা দেশের সার্বভৌমত্বের পক্ষে চিন্তাজনক।

এদিকে, রবিবারের পর সোমবারেও গোটা মিয়ানমারজুড়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন গণতন্ত্রপন্থীরা। এদিনও সেনা আন্দোলনকারীদের দমন করতে গুলি চালিয়েছে বলে অভিযোগ। বহু মানুষকে গ্রেফতারও করা হয়েছে। রবিবার সেনার গুলিতে ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: