আশুলিয়ায় স্যুয়ারেজ লাইন নিয়ে সংঘর্ষে আহত ৭, গ্রেফতার ১

সাভার প্রতিনিধি

সাভারের আশুলিয়ায় অবৈধভাবে স্যুয়ারেজ লাইন নির্মাণে বাঁধা দেয়ায় দখলদারের হামলায় ৭ জন আহত হয়েছেন। এতে ঘটনার ফারুক আহমেদ নামে মূল হোতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গতকাল রোববার (১২ জুলাই) আটককৃতকে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন আশুলিয়া থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুদীপ কুমার গোপ।

এর আগে রোববার দুপুরে আশুলিয়ার কাঠগড়া বাগের চালা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে রাতেই থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়।

এ ঘটনায় অভিযুক্তরা হলেন, মোঃ ফারুক আহম্মেদ(৩৮), আশরাফ(২৮), হাসান আলী(৩০), মানিক
পালোয়ান(৩৮) এবং সোহেল মোল্লা(৩০)।

এ ঘটনায় গুরুতর আহতরা হলেন, কাঠগড়ার নূর মোহাম্মদের ছেলে আসিফ (১৯) ও আলী আহাম্মেদের ছেলে জিসান (২২)। এ ঘটনায় বাকি আহতরা হলেন, আলী মাস্টার (৫৬), শামীমা আক্তার (৩৫), লিপি বেগম(২৫), পাপ্পু ওরফে শাওন (২৪) ও কাউসার (২৩)। তাদের সবাইকে স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী জিসান বলেন, আমার ভাই শাহীন পালোয়ানকে কাঠগড়া এলাকার ৬৪৮০ মিটার রাস্তা কর্তন করে নিজস্ব খরচে স্যুয়ারেজ লাইন নির্মাণ করার অনুমতি দেন এলজিইড্#ি৩৯;র উপজেলা প্রকৌশলী সালেহ প্রামাণিক। কিন্তু স্থানীয় ফারুক আহমেদ তার নিজের নামে বরাদ্দকৃত ৭০০ মিটার এর বাইরে অবৈধভাবে শাহীন পালোয়ান এর অংশে স্যুয়ারেজ লাইন নির্মাণ করা শুরু করে। আজ পুলিশকে জানিয়ে পুলিশের সাথে ফারুকের অবৈধ কাজে বাধা দিতে যাই আমি ও আমার পরিবারের লোকজন। তখন পুলিশের সামনে আমাকে ও
আমার মা-খালাসহ ৭-৮ জনকে বেধরক ভাবে মারধোর করে ফারুক আহমেদ, মানিক পালোয়ানসহ ও তাদের
সহযোগী কয়েকজন। আমি বাধা দিলে বিবাদীগণ আমার উপর হামলা করে। আমার ডাক চিৎকারে আমার
আত্মীয়-স্বজন এগিয়ে এলে তাদেরকেও মারধোর করে অভিযুক্তরা। আমার দুই ভাতিজির কাপড়চোপড়
টানাটানি করে শ্লীলতাহানি করেছে তারা।

স্যুয়ারেজ লাইনের কাজের ব্যাপারে সাভার উপজেলা প্রকৌশলী কর্মকর্তা সালেহ হাসান প্রামাণিক বলেন,
আগামীকাল ঘটনাস্থলে আমরা পর্যবেক্ষণে যাবো। যদি অভিযোগ সত্য হয় স্থানীয় চেয়ারম্যানের লিখিত
নিয়ে ইউএনও মহোদয় প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিবেন।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুদীপ কুমার গোপ বিষয়টি নিশ্চিত
করেছেন।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!