ইরানে করোনাভাইরাসে ২১০ জনের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

নিউমোনিয়া সদৃশ নতুন করোনাভাইরাসে ইরানে অন্তত ২১০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে দেশটির স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনার সঙ্গে জড়িত কয়েকটি সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বিবিসি।

মৃতদের বেশিরভাগেই রাজধানী তেহরান ও দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর কোমের, বলেছে তারা। তেহরান থেকে ১৪০ কিলোমিটার দূরের এই কোম শহরেই ইরানের প্রথম কভিড-১৯ রোগীর দেখা মিলেছিল।

বিবিসি বলছে, হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলোর কাছ থেকে পাওয়া মৃতের এ সংখ্যা দেশটির সরকারের জানানো সংখ্যার ৬ গুণেরও বেশি।

শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত ইরানি কর্তৃপক্ষ তাদের দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৩৪ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছিল।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র কিয়ানুশ জাহানপুর বলেছেন, প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে তারা স্বচ্ছতা বজায় রাখছেন এবং কোনো ধরনের লুকোচুরি করছেন না।

বিবিসির বিরুদ্ধে ‘মিথ্যা প্রচারের’ অভিযোগও তুলেছেন তিনি।

কোমের এক পার্লামেন্ট সদস্য এর আগে ইরানি কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর তথ্য নিয়ে লুকোচুরির অভিযোগ করেছিলেন। যুক্তরাষ্ট্রও তেহরানের তথ্য নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছিল।

“আমরা ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানকে সাহায্যের প্রস্তাব দিয়েছি। তাদের স্বাস্থ্যসেবার অবকাঠামো পরিপক্ক নয়; এখন পর্যন্ত দেশটির অভ্যন্তরে কী হচ্ছে, সে সংক্রান্ত তথ্য দেয়ার ক্ষেত্রেও তাদের ইচ্ছার ঘাটতি দেখা যাচ্ছে। ইরান (করোনাভাইরাস মোকাবেলার ক্ষেত্রে) বলিষ্ঠ নয়,” শুক্রবার ওয়াশিংটনে কংগ্রেসনাল কমিটিকে বলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেও।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্বাস মুসাভি যুক্তরাষ্ট্রের এ সাহায্য প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন।

“ইরানে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় এমন একটি দেশ সাহায্য করতে চাইছে যারা তাদের অর্থনৈতিক সন্ত্রাসবাদের মাধ্যমে আমাদের ওপর ভয়াবহ চাপ সৃষ্টি করেছে। এমনকী চিকিৎসা সরঞ্জাম ও ওষুধ ক্রয়ের ওপরও তাদের নিষেধাজ্ঞা আছে, এটি অগ্রহণযোগ্য ও রাজনৈতিক-মনস্তাত্ত্বিক খেলা,” বলেছেন তিনি।

ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশ থেকে ছড়িয়ে পড়া কভিড-১৯ এ বিশ্বব্যাপী আক্রান্তের সংখ্যা এরই মধ্যে ৮৩ হাজার পেরিয়েছে; মৃত্যু ছাড়িয়ে গেছে দুই হাজার ৮০০।

সাম্প্রতিক দিনগুলোতে চীনে আক্রান্ত-মৃত কমলেও দেশটির বাইরে বিশেষ করে ইরান, ইতালি ও দক্ষিণ কোরিয়ায় কভিড-১৯ হু হু করে ছড়াচ্ছে।

পরিস্থিতি মোকাবেলায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) শুক্রবার করোনাভাইরাস নিয়ে বিশ্বজুড়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছে।

ইরান এদিন তাদের দেশে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসটিতে আক্রান্ত আরও ১৪৩ জনকে শনাক্ত করার কথা জানিয়েছে। সব মিলিয়ে তাদের দেশে কভিড-১৯ এ আক্রান্তের সংখ্যা ৩৮৮, বলছে কর্তৃপক্ষ।

স্বাস্থ্য মন্ত্রী হাসান নামাকি পরে শনিবার থেকে দেশটির সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অন্তত ৩ দিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেন।

“আমাদের জন্য তুলনামূলক কঠিন একটি সপ্তাহ আসছে। যা গতি, তাতে আগামী সপ্তাহ এবং তার পরবর্তী দিনগুলোতে সংক্রমণ পরিস্থিতি সর্বোচ্চ শিখরে থাকতে পারে,” বলেছেন তিনি।

তেহরান শহর কর্তৃপক্ষের এক সদস্য বার্তা সংস্থা ইলনাকে বলেছেন, সামনের সপ্তাহগুলোতে ইরানে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১০ থেকে ১৫ হাজারে পৌঁছাতে পারে বলেও তারা আশঙ্কা করছেন।

চীনসহ অন্যান্য দেশের তুলনায় ইরানে আক্রান্ত-মৃতের অনুপাত বেশি হওয়ায় ডব্লিউএইচও’র কর্মকর্তারাও উদ্বিগ্ন।

আক্রান্তের সংখ্যা বাস্তবে যা বলা হচ্ছে তার চেয়ে কয়েকগুণ বেশিও হতে পারে বলে অনুমান করছেন তারা।

ভাইরাস মোকাবেলায় সহযোগিতা করতে রোববার- সোমবারের মধ্যে ডব্লিউএইচও’র একটি দলের ইরানে যাওয়ার কথা রয়েছে।

আইআই/শিরোনাম বিডি

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: