করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন ফ্লয়েড

গত সপ্তাহে মিনিয়াপোলিস পুলিশের নিপীড়নে মারা যাওয়া জর্জ ফ্লয়েডের করোনাভাইরাস পজিটিভ ছিল। হাতকড়া পড়িয়ে পুলিশ তার গলার উপর ৯ মিনিট হাঁটু চেপে ধরলে শ্বাসরোধ হয়ে মারা যান ফ্লয়েড। তারপর থেকে এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে বিক্ষোভে ফুঁসছে যুক্তরাষ্ট্র।

দুদিন আগে আংশিক ময়নাতদন্তে ফ্লয়েডের মৃত্যুকে ‘হত্যাকাণ্ড’ বলা হয়েছিল। বুধবার পূর্ণাঙ্গ ময়নাতদন্তে জানা গেলো, তিনি করোনাভাইরাস বহন করছিলেন শরীরে। পরিবারের সম্মতি নিয়ে এদিন পুরো রিপোর্ট প্রকাশ করে ময়নাতদন্তকারী প্রতিষ্ঠান হেনেপিন কাউন্টি মেডিক্যাল এক্সামিনার অফিস।

অবশ্য ফ্লয়েডের মৃত্যুতে করোনাভাইরাসের কোনোভাবে দায়ী ছিল না বলা হয়েছে ওই রিপোর্টে। কারণ তিনি ছিলেন উপসর্গহীন। এক বিবৃতিতে হেনেপিন কাউন্টির কার্যালয় জানায়, ‘ময়নাতদন্তে নাকের শ্লেষ্মা নেওয়া হয়েছে, সেখান থেকে নিশ্চিত হওয়া গেছে ফ্লয়েডের সার্স-কোভ-২ পজিটিভ, যা করোনাভাইরাসের কারণ। জানা গেছে, ৩ এপ্রিল কোভিড-১৯ পজিটিভ এসেছিল ফ্লয়েডের। ধারণা করা হচ্ছে, তা ছিল উপসর্গহীন।’

২০ পৃষ্ঠার ওই রিপোর্টে জানা গেছে, করোনা হলেও ফুসফুসের অবস্থা ভালো ছিল ফ্লয়েডের। শ্বাসরোধের কারণে হার্ট অ্যাটাক হয়েছিল তার। হার্টের ধমনী সরু দেখা গেছে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: