করোনার প্রথম টিকার অনুমোদন দিলো রাশিয়া

মস্কোভিত্তিক গামালিয়া ইনিস্টিটিউটের উন্নয়ন করা করোনাভাইরাসের টিকার সরকারিভাবে রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে। বিশ্বে প্রথম করোনার টিকার এই রেজিস্ট্রেশনের খবর মঙ্গলবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন জানিয়েছেন।

দেশটির সরকারি টেলিভিশনে সম্প্রচারিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে পুতিন বলেছেন, সব ধরনের প্রয়োজনীয় পরীক্ষার ধাপ শেষ করেছে টিকাটি।

গামালিয়া রিসার্চ ইনিস্টিটিউট ও রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় যৌথভাবে এই টিকার উন্নয়ন করেছে। গত সপ্তাহে দেশটির স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ওলেগ গ্রিদনেভ জানিয়েছিলেন, রাশিয়ার টিকা রেজিস্ট্রেশন পাওয়ার জন্য তৈরি। ১২ অগাস্ট সরকারিভাবে এর রেজিস্ট্রেশন দেওয়া হবে। ২০২০ সালের অক্টোবর মাস থেকেই বিপুল সংখ্যায় এই টিকা তৈরির কাজ শুরু করা হবে। তখন সাধারণ মানুষের হাতে হাতে পৌঁছে যাবে এটি।

টেলিকনফারেন্সে পুতিন বলেন, ‘আজ সকালে বিশ্বে প্রথমবারের মতো করোনাভাইরাস মোকাবিলার একটি টিকার রেজিস্ট্রেশন হয়েছে। আমি জানি এটি বেশ কার্যকর, এটি স্থিতিশীল ইমিউনিটি তৈরি করতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘সেই সুবাদে আমরা প্রথম রেজিস্ট্রেশন পেলাম। আমি আশা করি আমার বিদেশি সহকর্মীদের কাজ ভালোভাবে চলবে এবং আন্তর্জাতিক বাজারে ব্যবহারযোগ্য বিপুল পরিমাণ পণ্য দেখা যাবে।’

রুশ প্রেসিডেন্ট জানান, তার মেয়েদের মধ্যে এক জন টিকা নিয়েছে। টিকা নেওয়ার পর তার দেহের তাপমাত্রা কিছুটা বেড়েছিল। তবে এখন তার অবস্থা ভালো।

নিজের মেয়ের টিকা নেওয়া সম্পর্কে পুতিন বলেন, ‘আমি মনে করি এভাবে সে গবেষণায় অংশ নিয়েছে। ইনজেকশন নেওয়ার পর তার তাপমাত্রা ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল, পরের দিন ৩৭ ডিগ্রির মতো ছিল এবং ওই পর্যন্তই। দ্বিতীয় ইনজেকশন দেওয়ার পরও তার দেহের তাপমাত্রা কিছুটা বেড়েছিল এবং ওই পর্যন্তই এবং পরে তা নেমে যায়। এখন সে ভালো অনুভব করছে।’

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: