কাশির চিকিৎসা করাতে গিয়ে গলায় মিলল জোঁকের বাসা

শিরোনাম ডেস্ক

২ মাস ধরে এক নাগাড়ে কাশি। কোনোমতেই সুস্থ না হওয়ায় শরণাপন্ন হলেন চিকিৎসকের। এরপর কিছু পরীক্ষা নিরীক্ষা করানোর পর যে ভয়াবহতা ধরা পড়লো তা সত্যি চমকে ওঠার মতই। রিপোর্টে দেখা গেলো তার শরীরের ভিতরে দুটি জ্যান্ত জোঁক বাসা বেঁধেছে।

গত শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে চীনে। অসুস্থ ঐ ব্যক্তির নাম জিংওয়েন কাউন্টি (৬০)।

ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদন থেকে বিষয়টি জানা গেছে। ডেইলি মেইলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে চিকিৎসক জানিয়েছেন ওই রোগী এখন সুস্থ হয়ে উঠছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে বহুদিন ধরেই কাশি হচ্ছিলো জিংওয়েন কাউন্টির। কাশির সঙ্গে বেরিয়ে আসছিল রক্তও! কোনওভাবেই কাশি না কমায় শেষমেশ লংগিয়ানের উইপিং কাউন্টি হাসপাতালের চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন।

প্রাথমিক সিটি স্ক্যানে কোনও অস্বাভাবিক কিছুই দেখা যায় নি। পরে চিকিৎসকরা রোগীর ব্রঙ্কোস্কোপি করেন। এই পরীক্ষায় তার দেহের ভিতরে দুটি জ্যান্ত জোঁক দেখতে পাওয়া যায়।

অ্যাপল ডেইলি নিউজ জানিয়েছে যে, একটি জোঁক মিলেছে তার ডানদিকের নাকে, অন্যটি রোগীর গ্লটিসের নীচে আটকে ছিল।

ডা. রাও গুয়ানইয়াং রোগীর লোকাল অ্যানেস্থেসিয়া করার পরে ট্যুইজার দিয়ে প্রায় ১০ সেন্টিমিটার লম্বা ওই জোঁকগুলি একে একে সরিয়ে ফেলেন।

চিকিৎসক জানান, ‘যখন তিনি জোঁকসমেত ওই জল খেয়ে ফেলেন, সম্ভবত তখন জোঁকগুলি খুবই ছোট আকারের ছিল এবং খালি চোখে ধরা না পড়াই সেক্ষেত্রে স্বাভাবিক। গত এক দু’মাস ধরে এই ব্যক্তির গলা থেকে রক্ত শুঁষে খেয়ে বড় হয়েছে জোঁকগুলি।’

সূত্র: ডেইলি মেইল, এনডিটিভি

এএস/শিরোনাম বিডি

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
%d bloggers like this: