ক্যাসিনো সম্রাটের বিরুদ্ধে ১৯৫ কোটি টাকা পাচারের মামলা

ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানে আলোচিত ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের বিরুদ্ধে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে মামলা করেছে।

রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর রমনা থানায় মামলাটি দায়ের করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন সিআইডির সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি মিডিয়া) জিসানুল হক।

তিনি বলেন, কাকরাইলের বাসায় অবস্থান করে অবৈধ কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে অর্জিত ১৯৫ কোটি টাকা সহযােগী মাে. এনামুল হক আরমানের (৫৬) সহায়তায় সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ায় পাচার করায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট রাজধানীর মতিঝিল, ফকিরাপুল, পল্টন ও কাকরাইল এলাকায় প্রভাব বিস্তার করে অবৈধ অর্থ উপার্জন করেছেন। তার উপার্জিত অবৈধ অর্থের মধ্যে ১৯৫ কোটি টাকা তিনি তার সহযোগী আসামি আরমানের সহায়তায় সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়া পাচার করেছেন।

এদিকে ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের বিরুদ্ধে দুই কোটি ৯৪ লাখ ৮০ হাজার ৮৭ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের করা মামলা তদন্তাধীন রয়েছে। ওই মামলায় গত ১৮ আগস্ট আদালত দুদকের আবেদনের প্রেক্ষিতে সম্রাটের স্থাবর সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ দেন।

গত বছরের ৫ অক্টোবর ভোরে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে যুবলীগ নেতা সম্রাট ও তার সহযোগী আরমানকে আটক করা হয়। পরে ঢাকায় এনে তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদও করে র‌্যাব। ওইদিন দুপুরে র‌্যাবের একটি দল সম্রাটকে নিয়ে তার কাকরাইলের ভূঁইয়া ট্রেড সেন্টারের কার্যালয়ে অভিযান চালায়। অভিযানে একটি পিস্তল, বিপুল পরিমাণ বিদেশি মদ ও দুটি ক্যাঙ্গারুর চামড়া জব্দ করে র‌্যাব। পরে ছয় মাসের জেল দিয়ে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: