চলে গেলেন ইফতেখারুল আলম কিসলু

নিজস্ব প্রতিবেদক

চলে গেলেন উপমহাদেশের বিখ্যাত প্রযোজক-পরিবেশক এবং প্রদর্শক ইফতেখারুল আলম কিসলু (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। সোমবার (৬ জানুয়ারি) সকালে বার্ধক্যজনিত কারণে নিজ বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। আজ বাদ জোহর গুলশান আজাদ মসজিদে জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন হয়েছে। এ তথ্য জানিয়েছেন প্রযোজক ও হল মালিক ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ।

মধুমিতা হলের মালিক ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, ‘ইফতেখারুল আলম কিসলুর মতো একজন ব্যক্তিকে আমরা ঠিকমতো মূল্যায়ন করতে পারিনি। তিনি আমাদের চলচ্চিত্র শিল্পকে তুলে ধরেছেন। একজন জহির রায়হান বা আমজাদ হোসেনের উঠে আসার পেছনের কারিগর তিনি ও তার প্রতিষ্ঠান স্টার। এখন আমাদের উচিত তার কাজগুলো নিয়ে আলোচনা করা।’

ইফতেখারুল আলম কিসলুর স্টার ফিল্ম কর্পোরেশন লিমিটেড প্রায় দুই শতাধিক সিনেমা প্রযোজনা-পরিবেশনা করেছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য সিনেমা হলো—‘নতুন সুর’, ‘কাচের দেয়াল’, ‘সঙ্গম’, ‘বাহানা’, ‘আনোয়ারা’, ‘ধীরে বহে মেঘনা’, ‘বেহুলা’, ‘দুই ভাই’, ‘আগুন নিয়ে খেলা’, ‘দুয়োরানী শুয়োরানী’, ‘আগন্তুক’, ‘আলীবাবা’, ‘চম্পাকলি’, ‘বর্গী এলো দেশে’ প্রভৃতি।

কিসলু অবিভক্ত ভারতবর্ষের ঢাকার প্রথম রোটারিয়ান গভর্ণর হিসেবে সুনাম বয়ে আনেন। এছাড়া ঢাকা ক্লাবের এক নম্বর সদস্যপদটি অলংকৃত করে আসছিলেন। ১৯৪৮ সালে সিনেমা হল ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত হন কিসলু। এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের মালিকানাধীন রাজমহল, আজাদ, স্টার, মুন, রুপমহল, উজালা উল্লেখযোগ্য সিনেমা হল ছিল।

১৯৫০ সালে খলীলুল্লাহ এবং মুহিতুল আলমের সঙ্গে গড়ে তুলেন ‘স্টার ফিল্ম কর্পোরেশন লি.’। এরমধ্য দিয়ে চলচ্চিত্র পরিবেশনার সঙ্গে যুক্ত হন। ১৯৫১ সালে পূর্ব পাকিস্তান চলচ্চিত্র সমিতির সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

শিরোনামবিডি/বাবলু ইসলাম

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: