টিকে যাচ্ছেন ডমিঙ্গো

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর সঙ্গে চলতি সিরিজ শেষে চুক্তি নবায়ন করা হবে, এমন আভাস দিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) প্রধান নাজমুল হাসান পাপন।

সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকার এ কোচের পারফরম্যান্স নিয়ে বেশ কাটাছেঁড়া হচ্ছিল। দল তার অধীনে ভালো করতে না পারায় সমালোচনায় বিদ্ধ হচ্ছিলেন ডমিঙ্গো। শেষ ১০ ম্যাচে বাংলাদেশ একটি ম্যাচও জেতেনি। খেলোয়াড়রা মাঠে খারাপ করছে। কোচের পরিকল্পনা কী কাজে আসছে? সেসব নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। অনেকেই মনে করেন উপমহাদেশে কোচিং করানোর জন্য ডমিঙ্গো আদর্শ নন।

তবে সেসব নিয়ে বিসিবি ভাবছে সামান্যই। বরং খেলোয়াড়দের ভুলগুলোকে চোখে আঙুল দিয়ে ধরিয়ে দিচ্ছেন বিসিবি সভাপতি। রোববার (২৩ মে) শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে চলাকালে নাজমুল হাসান গণমাধ্যমকে বলেন, ‘এখানে ২-৩টা ব্যাপার আছে। প্রথম কথা হচ্ছে চুক্তি নবায়ন করবো কি করবো না! এটা একটা ইস্যু। দ্বিতীয়টা হচ্ছে যদি আমরা নবায়ন না করি তাহলে বিকল্প কিছু থাকতে হবে।’

‘এই করোনাকালে ও বিশ্বকাপের আগে এমন কোন কিছু আমাদের মাথায় নেই। এটাই বাস্তবতা। এখন আমরা (বিসিবি) জড়িত (দলের সঙ্গে) হতে শুরু করেছি। আমরা বলতে ক্রিকেট বোর্ড সরাসরি একটু জানার চেষ্টা করছে। কি হচ্ছে কেন হচ্ছে!’

‘সমস্যা হচ্ছে হার জিত নিয়ে বড় কথা না। আজকে আমাদের ব্যাটিংটা দেখুন। ওরা কয়টা ভালো বল, দারুণ ফিল্ডিং করে আমাদের উইকেট নিয়েছে? শট নির্বাচনগুলি কি ঠিক ছিলো? এখানে যত ভালো কোচই আনেন লাভ তো নেই। এখানে কোচের কথাটা পরে। আগে আমাদের খেলোয়াড়দের নিয়ে বসতে হবে ওদের চিন্তা ধারাটা কি?’ – যোগ করেন নাজমুল হাসান।

২০১৯ সালের ৭ আগস্ট বিসিবিতে সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। বিসিবির হাই পারফরম্যান্স ইউনিটের (এইচপি) কোচ হিসেবে সাক্ষাৎকার দিতে বাংলাদেশে এসেছিলেন এ দক্ষিণ আফ্রিকান। তার প্রোফাইলে উচ্ছ্বসিত হয়ে বিসিবি থেকে দেওয়া হয় জাতীয় দলের কোচ হওয়ার প্রস্তাব। বেতন ধরা হয় মাসিক ১৫ হাজার ডলারের মতো। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ১২ লাখ ৬৮ হাজার টাকা।

দায়িত্ব নেওয়ার কয়েক দিনের মধ্যেই বাংলাদেশ ক্রিকেট হজম করে স্মরণকালের সবচেয়ে বড় ধাক্কা। ঘরের মাঠে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচে হার। এরপর ভারত ও পাকিস্তান সফরে টেস্ট সিরিজে একেবারেই বাজে পারফরম্যান্স বাংলাদেশের। তিনটি টেস্টই হেরেছে বাজেভাবে।

যদিও দিল্লিতে বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টিতে হারিয়েছিল ভারতকে। এরপর জিম্বাবুয়েকে এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ওয়ানডেতে ঘরের মাঠে ৩-০ ব্যবধান করে হোয়াইটওয়াশ করে বাংলাদেশ এবং জিম্বাবুয়েকে টেস্ট ম্যাচ হারায়। কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঘরের মঠে টেস্টে ২-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ এবং নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ৩-০ ব্যবধানে ওয়ানডে এবং একই ব্যবধানে টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারের পর কোচকে নিয়ে কানাঘুষা শুরু হয়। সব শেষ শ্রীলঙ্কা সফরে তার অধীনে দল একটি টেস্ট ম্যাচ ড্র করে, একটিতে হারে।

ডমিঙ্গোর অধীনে তিন সংস্করণ মিলিয়ে ৩১ ম্যাচ খেলে ১৮টিতেই হেরেছে বাংলাদেশ দল। জয় ১৩টিতে। টেস্টে ৮ ম্যাচ খেলে একটি জয়, ওয়ানডেতে ৯ ম্যাচে জয় ৬টি ও টি–টোয়েন্টিতে ১৪ ম্যাচেও জয় ৬টিতে।

দক্ষিণ আফ্রিকান কোচের পারফরম্যান্স ভালো না হলেও আরো এক বছরের জন্য টিকে যাচ্ছেন। সামনে তার হাত ধরে বাংলাদেশ ভালো কিছু পায় কি না সেটাই দেখার।

কেআরআর

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: