টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আওয়ামী লীগ নেতা নিহত

 

জেলা প্রতিবেদক,টেকনাফ
টেকনাফে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক আওয়ামী লীগ নেতা নিহত হয়েছেন।

শনিবার (১৩ জুলাই) রাত পৌনে ১টার দিকে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের নয়াপাড়া এলাকার নাফ নদের পাশে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম মুফিদ আলম (৩৯)। তিনি স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও নয়াপাড়া গ্রামের মৃত নজির আহমদের ছেলে।

এর আগে শনিবার (১৩ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টার দিকে নয়াপাড়াবাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাবাদে মফিদ স্বীকার করেন নয়াপাড়া বালিকা মাদ্রাসার পেছনে নাফ নদের পাশে ইয়াবার বড় চালান মজুদ রয়েছে। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযানে যায় পুলিশ। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মুফিদের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশ ৩৮ রাউন্ড পাল্টা গুলি ছোড়ে। এসময় আটক মুফিদ আলম গুলিবিদ্ধ হন। পরে গুরুতর আহত গুলিবিদ্ধ মুফিদ আলমকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। সেখানে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এসময় তল্লাশি করে বিক্ষিপ্তভাবে ফেলে যাওয়া দুটি দেশীয় বন্দুক, ১০ রাউন্ড শটগানের তাজা কার্তুজ এবং ৫ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, তার বিরুদ্ধে মাদক ও অস্ত্র আইনে ছয়টি মামলা রয়েছে। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এমএম/শিরোনাম বিডি

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: