ঢাকা জেলা পুলিশের গৌরব এসআই বিলায়েত

নিজস্ব প্রতিবেদক

সেবা, সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ ভূমিকার জন্য পুরস্কার স্বরূপ এ বছর চারটি ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশ পুলিশের কনস্টেবল থেকে অতিরিক্ত আইজিপি পদমর্যাদার ১১৮ জন সদস্য বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) এবং প্রেসিডেন্ট পুলিশ পদক (পিপিএম) পদকের জন্য মনোনীত হয়েছেন। এর মধ্যে সাহসিকতা ও কর্মদক্ষতা গুণে ঢাকা জেলা পুলিশের একমাত্র সদস্য হিসেবে পিপিএম-সেবা পদকে ভূষিত হয়েছেন গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. বিলায়েত হোসেন।

রবিবার (৫ জানুয়ারি) রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে পুলিশ সপ্তাহ উদ্বোধনের শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে পুলিশ বাহিনীর সর্বোচ্চ সম্মাননা পিপিএম তুলে দেন। পুলিশ সপ্তাহ চলবে আগামি ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত।

ফরিদপুর জেলার কোতয়ালী থানার দশহাজার গ্রামের কৃতি সন্তান বিলায়েত হোসেন শুধু নিজের জন্মভ‚মিকেই আলোকিত করেননি, গৌরব এনে দিয়েছেন ঢাকা জেলা পুলিশকেও। প্রশিক্ষণ শেষ করে ২০১৭ সালে বাংলাদেশ পুলিশে যোগ দেওয়ার মাত্র দুই বছরেই নিজেকে প্রমাণ করেছেন বিচক্ষণ ও দক্ষ পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে। ডাকাতি, হত্যা, অস্ত্র উদ্ধার ও অপহরণসহ ক্লুলেস মামলার রহস্য উন্মোচন করে দেখিয়েছেন বীরত্বপূর্ণ সফলতা। গত এক বছরে এসআই বিলায়েত প্রায় এক’শ অপরাধীকে গ্রেফতার করতে হয়েছেন সক্ষম। তাই ২০১৯ সালে সুদক্ষতার জন্য তাকে ভূষিত করা হয়েছে পিপিএম-সেবা পদকে।

এসআই বিলায়েত হোসেন।

বিলায়েত হোসেন পুলিশ বাহিনীর ৩৫তম ব্যাচের সদস্য বিলায়েত হোসেন প্রথম কর্মস্থল হিসেবে যোগদান করেন ঢাকা জেলার নবাবগঞ্জ থানায়। এরপর আশুলিয়া ও দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় বিচক্ষণতার সাথে একজন উপ-পরিদর্শক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশের একজন চৌকস ও সাহসী কর্মকর্তা হিসেবে নিজ দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন বিলায়েত।

ফরিদপুরে বিলায়েত হোসেনের বাবা মো. আলতাফ মোল্লা পেশায় একজন ব্যবসায়ী ও মা গৃহিণী। চার ভাইয়ের মধ্যে বিলায়েত মেজো। তার বড় ভাইও ঢাকা জেলার অন্তর্গত ধামরাই থানার একজন পুলিশ সদস্য।

কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কৃতিত্বের সাথে স্নাতক ও স্নাতোকত্তর শেষ করে দেশের মানুষের সেবা করার জন্য পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেন তিনি।

ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) বিলায়েত হোসেন বলেন, চাকরি জীবনে এমন পুরষ্কার তার কাজের গতিকে বহুগুণে বাড়িয়ে দিয়েছে। দেশের মানুষের জন্য কাজ করার স্পৃহাকে করেছে আরো বেশি জাগ্রত। এমন সম্মানে ভ‚ষিত হতে পেরে নিজেকে আমি ধন্য মনে করছি।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ড. জাবেদ পাটোয়ারি স্যারের সঠিক দিক নির্দেশনায় এগিয়ে যাচ্ছে পুলিশ বাহিনী। আর ঢাকা জেলা পুলিশ তার নির্দেশনা মোতাবেক যথাযথ দায়িত্ব পালন করছে। যার কৃতিত্ব ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান ও পুলিশ সুপার মারুফ সরদার স্যারের।

আর ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক (ওসি) আবুল বাশার স্যারের সহযোগিতা ছাড়া তার এই পদক প্রাপ্তি কখনও সম্ভব হতো না। তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর ভাষা আমার জানা নেই।

আইআই/শিরোনাম বিডি

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: