দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা পাচ্ছেন বিশ্বের দ্রুততম মানব

স্প্রিন্টের রাজা উসাইন বোল্টের বিদায়ের পর অনেকে তাঁর রেখে যাওয়া আসনে বসেছেন। অনেকে পেয়েছেন বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুততম মানবের খেতাব। তবে বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুততম মানব হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন যুক্তরাষ্ট্রে স্প্রিন্টার ক্রিস্টিয়ান কোলম্যান। এই স্প্রিন্টার সর্বশেষ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ৯.৭৬ সেকেন্ডে ১০০ মিটার ড্যাশ সম্পূর্ণ করে এই খেতাব জিতেছেন।

তবে এই স্প্রিন্টারের জন্য দুঃখের খবর হচ্ছে, আসন্ন অলিম্পিকে ট্র্যাকে নামতে পারবেন না তিনি। অ্যাথলেটিকস ইন্টেগ্রিটি ইউনিট (এআইইউ) থেকে দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা পেতে চলেছেন তিনি। মূলত এআইইউ-কে এক বছরের মধ্যে তিনবার নিজের অবস্থান জানাতে ব্যর্থ হওয়াতে এমন শাস্তির মুখে পড়তে হচ্ছে তাকে। তবে কোলম্যান এআইইউ-এর এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাচ্ছে।

সাধারণত যে কোনো টুর্নামেন্টের আগে অ্যাথলেটদের ডোপিং টেস্ট করা হয়ে থাকে। এছাড়া বাকি সময়ে অ্যাথলেটিকস ইন্টেগ্রিটি ইউনিটকে নিজেদের অবস্থান জানানো বাধ্যতামূলক বলে নিয়ম রয়েছে। কোনো অ্যাথলেট ইচ্ছা বা অনিচ্ছায়ও নিজের অবস্থান না জানালে সেটিকে দোষ হিসেবে গ্রাহ্য করা হয়। আর কেউ তিনবার এমন ভুল করে থাকলে সেটাকে অ্যান্টি ডোপিং অ্যাজেন্সির নিয়ম ভঙ্গ করা হিসেবে গণ্য করা হয়। আর সেক্ষেত্রে দুই বছরের নিষেধাজ্ঞার শাস্তির বিধান রয়েছে।

কোলম্যান গত এক বছরের মধ্যে এআইইউকে তিনবার নিজের অবস্থান জানাতে ব্যর্থ হয়েছেন। আর তাই তাকে দুই বছরের নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে হচ্ছে। আর সেক্ষেত্রে আগামী বছরের টোকিও অলিম্পিকে অংশ নিতে পারবেন না কোলম্যান।

তবে এ আইইউ-এর এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছে কোলম্যান। নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে এআইইউ-এর এমন সিদ্ধান্তকে ভুল দাবি করেছেন এই আমেরিকান অ্যাথলেট। তিনি জানিয়েছেন, অবস্থান জানানোর এই নিয়ম অচিরেই পরিবর্তন করা দরকার।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: