ধামরাইয়ে গৃহবধূর রহস্যজনক লাশ উদ্ধার, স্বামী আটক

উপজেলা প্রতিবেদক, ধামরাই

ঢাকার ধামরাইয়ে সোমভাগ ইউনিয়নে ‍ভাড়া বাড়ির নিজ কক্ষ থেকে সোনিয়া আক্তার নামে এক গৃহবধূর গলায় গলায় ফাঁস দেয়া অবস্থায় রহস্যজনক মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্বামী ফজলুল হককে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলার সোমভাগ ইউনিয়নের ফুকুটিয়া গ্রামের ভাড়া বাসা থেকে ওই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত সোনিয়া আক্তার (২৫) বগুড়া জেলার সরিষাকান্দী উপজেলার চর কুমারপাড়া গ্রামের ফজলুল হকের স্ত্রী। নিহত গৃহবধূ একই এলাকার নজরুল ইসলামের মেয়ে। তারা ধামরাই উপজেলার সোমভাগ ইউনিয়নের ফুকুটিয়া গ্রামের রোজিনা বেগমের বাড়ীর ভাড়াটিয়া।

পুলিশ জানায়, বুধবার দুপুরে উপজেলার ফুকুটিয়া গ্রামের ভাড়া বাড়ির কক্ষে ওই গৃহবধূর গলায় রশি দিয়ে ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়া হয়। পরে বিকেলে প্রাথমিক সুরতহাল শেষে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়। এঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্বামী ফজলুল হককে আটক করে পুলিশ।

এ বিষয়ে ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামাল হোসেন জানান, প্রাথমিক ভাবে দাম্পত্য কলহের জেরে ওই গৃহবধূ গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্তের পরই মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে। এঘটনায় নিহত গৃহবধূর স্বামীকে আটক করা হয়েছে।

এমএইচআর/শিরোনাম বিডি

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: