ধামরাইয়ে ধর্ষণ প্রতিরোধে পুলিশ-জনতার মতবিনিময়

উপজেলা প্রতিবেদক

ঢাকার ধামরাইয়ে নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ প্রতিরোধে মতবিনিময় সভা হয়েছে। শনিবার দুপুরে উপজেলার গাঙ্গুটিয়া ইউনিয়নের বারবাড়িয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ঘণ্টাব্যাপী এ সভায় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের মোল্লার সভাপতিত্বে ইউনিয়ন বিট পুলিশিংয়ের সদস্য সচিব নুর মোহাম্মদ সানির সঞ্চালনায় ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আরাফাত উদ্দিন, সাংবাদিক আরিফুল ইসলাম সাব্বির, স্থানীয় ৯ ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও এলাকার সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।

সভায় এসআই আরাফাত উদ্দিন বলেন, একত্রে জনমত ও জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে পারলে সমাজে এই জঘন্য অপরাধ প্রবণতা রোধ করা সম্ভব হবে। সন্তানকে সঠিকভাবে পারিবারিক ও নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে। এই ধরনের অপরাধ দূর করতে শুধু পুলিশ কিংবা প্রশাসন নয় স্থানীয়ভাবে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে এর থেকে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে।

তিনি বলেন, নির্যাতন ও ধর্ষণের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনবার চেষ্টা করে যাচ্ছি। কিছু কিছু ক্ষেত্রে সফলতা পাচ্ছি। আবার কিছু ক্ষেত্রে আইনের ফাঁক গলে অপরাধী পার পেয়ে যাচ্ছে। কিন্তু কথা হচ্ছে এর থেকে নিস্তার পেতে হবে আমাদের। আর এর জন্য আমাদের প্রত্যেকে প্রত্যেকের জায়গা থেকে সামাজিক দায়িত্ব পালন করতে হবে।

‘সেই সাথে আপনার আমার সন্তান কী করছে, কার সাথে মিশছে, অপ্রয়োজনে কতক্ষণ বাড়ির বাইরে থাকছে, পড়াশুনা ঠিকমত করছে কিনা, স্কুল-কলেজ যাচ্ছে কিনা এর দেখভালের বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলেন তিনি।’

আরাফাত উদ্দিন বলেন, বাংলাদেশ পুলিশ সকল সময়ের জন্য আপনাদের পাশে ছিল, পাশে থাকবে। যদি আপনাদের মেয়ে সন্তানকে কেউ উত্যক্ত করে কিংবা অশালীন অশোভন আচরণ করে তাহলে পুলিশকে অবহিত করবেন। আমরা তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। তবে খেয়াল রাখতে হবে কারও বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে যেন ষড়যন্ত্রের মধ্যে না ফেলানো হয়।

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ধর্ষণ প্রতিরোধ ও প্রতিকারে সরকারের পাশাপাশি পরিবারেরও দায়িত্ব রয়েছে। এজন্য নিজেদের শিশুদের দিকে খেয়াল রাখতে হবে। পরিবার থেকেই নৈতিক শিক্ষা দিতে হবে।

এতে সভাপতির বক্তব্যে ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে মাদক ব্যবসায়ীদের ছাড় দেওয়া হবে না। এ জন্য জনগণকে এগিয়ে আসতে হবে। সন্ত্রাস, মাদক ও ভূমিদস্যুদের সঙ্গে কোনও আপস হবে না। সন্ত্রাস, মাদক, চাঁদাবাজ ও নারী ধর্ষণকারী যে দলের হউক কোনও ছাড় নয়। মাদক ও নারী ধর্ষণকারী দলের কেউ নয়। সরকার সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছে।

সমাজ থেকে ধর্ষণ দূর করতে না পারলে দেশের উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হবে। তাই সম্মিলিতভাবে সমাজ থেকে ধর্ষণ দূরীকরণে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: