পদ্মা সেতুর ৪ হাজার ৬৫০ মিটার দৃশ‌্যমান

পদ্মা সেতুতে ৩১তম স্প্যান বাসানো হয়েছে। এতে মূল সেতুর চার হাজার ৬৫০ মিটার দৃশ‌্যমান হলো।

বুধবার (১০ জুন) বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে ২৫ ও ২৬ নম্বর পিলারের উপর স্প‌্যানটি বসানো হয়েছে। স্প‌্যানটির নাম ফাইভ-এ। মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তের আর মাত্র ১০টি স্প্যান বসানো বাকি রয়েছে। ৩১তম এ স্প্যানটিই ছিল শরিয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে বসানোর শেষ স্প্যান।

বুধবার সকালে আবহাওয়া বৈরি ছিল। এ কারণে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মাওয়া কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ৩১তম স্প্যানটি নিয়ে পৌনে ৯টার দিকে রওনা হয় ভাসমান ক্রেন তিয়ান-ই।

বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যর স্প্যানটি নিয়ে শরিয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে ভাসমান ক্রেনটি পদ্মা সেতুর ২৫ ও ২৬ নম্বর পিলারের কাছে পৌঁছায়। স্প্যান বসানোর জন্য সব ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় প্রকৌশলীরা স্প্যানটি বসাতে সক্ষম হন।

বেলা ১১টা থেকে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌ-চ্যানেলে ফেরি, লঞ্চ, স্পিডবোট, ট্রলারসহ সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ রাখে বিআইডাব্লিটিসি ও বিআইডব্লিউটিএ-কর্তৃপক্ষ।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, এর আগে গেল ৩১ মে পদ্মা সেতুর ৩০তম স্প্যান পিলারের ওপর স্থাপন করা হয়। স্প্যানটি জাজিরা প্রান্তের ২৬ ও ২৭ নম্বর খুঁটিরওপর স্থাপন করা হয়।এতে দৃশ্যমান হয় সেতুর সাড়ে ৪ কিলোমিটার। আজ ৩১তম স্প্যানটি বসানোর মাধ্যমে পদ্মা সেতুর চার হাজার ৬৫০ মিটার দৃশ্যমান হলো।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: