বাড়ি ভাড়া মওকুফ করে শ্রমিকদের পাশে রুবেল দম্পতি

উপজেলা প্রতিবেদক

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণে সারা বিশ্বে প্রাণ হারিয়েছে লাখ লাখ মানুষ। এখন পর্যন্ত অদৃশ্য এই ভাইরাসের কোন প্রতিষেধক তৈরি না হওয়ায় প্রতিরোধ হিসেবে হোম কোয়ারেনটাইন তথা ঘরে থাকাই যেন সারা বিশ্বের মানুষের একমাত্র বেঁচে থাকার পন্থা। ফলে বিশ্বজুড়ে থমকে গেছে কর্মযজ্ঞ তথা অর্থনীতি।

আর করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে চরম সংকট দেখা দিয়েছে বাংলাদেশের পোশাক শিল্পে। ফলে বিপাকে পড়েছেন এই খাতের উপর নির্ভরশীল পোশাক শ্রমিকরা।

এদিকে পোশাক শ্রমিকদের কথা চিন্তা করে আশুলিয়া শিল্প এলাকার বাড়িওয়ালা, শ্রমিক নেতা ও ভাড়াটিয়া পরিষদের এক বৈঠকে এখানে বসবাসরত শ্রমিকদের ৪০ শতাংশ ভাড়া মকুফের আহ্বান করে শিল্প পুলিশ। আর সেই আহ্বানে প্রথম সাড়া দিয়ে বাড়ি ভাড়া মওকুফ করলেন বিশিষ্ট গার্মেন্ট ব্যবসায়ী রুবেল আহমেদ ও তার স্ত্রী।

গত ২৬ এপ্রিল থেকে ৩০ শতাংশ শ্রমিকদের নিয়ে সীমিত আকারে শিল্প কারখানা চালু রাখার সিদ্ধান্ত হয়। এরপর ২৮ এপ্রিল বাকি শ্রমিকদের মোট বেতনের ৬৫ শতাংশ নির্ধারণ করায় হতাশা প্রকাশ করেন শ্রমিকরা। কারণ এই বেতনে বাড়ি ভাড়া পরিশোধের পর খাওয়ার টাকা থাকবে কিনা তা নিয়ে শঙ্কা ও হতাশা প্রকাশ করেন তারা।

পরে গত ৮ মে দুপুরে শিল্প পুলিশ-১ এর প্রধান দফতরে জনপ্রতিনিধি, শিল্প পুলিশ, বাড়িওয়ালা এবং আশুলিয়া ভাড়াটিয়া পরিষদের যৌথ বৈঠকে শ্রমিকদের ৪০ শতাংশ বাড়ি ভাড়া মওকুফের আহ্বান জানানো হলে উপস্থিত বাড়িওয়ালারা এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানান। পরে ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বাড়ি ভাড়ার ৪০ শতাংশ মওকুফের আহ্বান জানান।

আর এই আহ্বানে প্রথম সাড়া দিয়ে আশুলিয়ায় প্রথম তিন বাড়ির ভাড়া মওকুফ করলেন বিশিষ্ট গার্মেন্ট ব্যবসায়ী রুবেল আহমেদ।

দিব্ব ফ্যাশন গার্মেন্টের স্বত্তাধিকারী রুবেল আহমেদ বলেন, ‘মহামারি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে অসহায় ও মানবিক জীবনযাপন করছেন দেশের প্রত্যন্ত এলাকা থেকে আসা এখানে বসবাসরত শ্রমিক পরিবার গুলো। ৩০ শতাংশ শ্রমিক নিয়ে সীমিত আকারে পোশাক কারখানা খুলে দেয়া হলেও বাকি শ্রমিকদের জন্য ৬৫ শতাংশ বেতন নির্ধারণ করায় বাড়ি ভাড়া পরিশোধ ও খাওয়া নিয়ে বিপাকে পড়েছেন শ্রমিকরা। তাদের কথা চিন্তা করে ঈদ উপহার হিসেবে ও আহ্বান অনুযায়ী আমি ও আমার স্ত্রীর মালিকানাধীন তিনটি বাড়ির ৪০ শতাংশ ভাড়া মওকুফ করে দিয়েছি।’

‘চলমান এই বৈশ্বিক মহামারি মোকাবেলায় সামর্থ্য অনুযায়ী আমাদের শ্রমিকদের পাশে দাঁড়ানো উচিত। তাদের কাছ থেকে শতভাগ বাড়ি ভাড়া আদায় করা মানবিক হবে না। তাই দেশের অর্থনীতিকে সচল ও করোনা প্রতিরোধে সবার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।’

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: