বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে রাজমিস্ত্রিকে রাতভর নির্যাতনের অভিযোগ

ধামরাই প্রতিনিধি

ঢাকার ধামরাইয়ে রাতের আঁধারে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে নূরে আলম (৩৫) নামে এক রাজমিস্ত্রিকে রাতভর নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় ভুক্তভোগী বাবা মানিক মিয়া ধামরাই থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

রোববার (০১ আগষ্ট) সকালে অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করেন ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আশরাফুল ইসলাম।

এর আগে গত ২৪ জুলাই উপজেলার সোমভাগ ইউনিয়নের কংশপট্টি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে ২৬ জুলাই ভুক্তভোগী রাজমিন্ত্রির বাবা বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখ করে ধামরাই থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযুক্তরা হলেন, উপজেলার সোমভাগ ইউনিয়নের কংশপট্টি গ্রামের মৃত. সফর আলী দুই ছেলে মো: মঞ্জু(৩৮), মনির হোসেন(৪২) ও মনির হোসেন দুই ছেলে আবু বক্কর (১৯), আ: গাফ্ফার (১৮)। ভুক্তভোগী নূরে আলম (৩৫) ধামরাইয়ের সোমভাগ ইউনিয়নের কংশপট্টি গ্রামের মোঃ মানিক মিয়ার ছেলে।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ তারিখ রাত ১০টার দিকে টাকা পয়সা লেনদেনের কথা বলে অভিযুক্তরা ভুক্তভোগীকে ডেকে নিয়ে বাইরে নিয়ে গিয়ে সেখানে কথাবার্তার একপর্যায়ে ভুক্তভোগীকে মারধর শুরু করে অভিযুক্তরা। এসময় তাকে লাথিপেটা, কিল, ঘুষি ও লাথি মেরে নিলাফুলা জখম করা হয়। পরে খবর পেয়ে তার পরিবারের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে।

সোমভাগ ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নাছির উদ্দীন বলেন, ‘নূরে আলমের কাছে ২ লাখ টাকা পাইতো মঞ্জু। কিন্তু এই টাকা না দিয়ে কয়েকমাস ধরে পালিয়ে বেড়াচ্ছিলো সে। ২৪ তারিখ রাতে সে শ্বশুর বাড়ি আসছে এমন খবর পেয়ে মঞ্জু তাকে ধরে নিয়ে নিজের বাড়ি নিয়ে আসে। পরে রাতে তাকে তুলে নেয়ার বিষয়টি নূরের বাবা আমাকে জানায়। পরে তার স্ত্রীকে নিয়ে ওই বাড়ি গিয়ে তাকে তার স্ত্রীর জিম্মায় ছাড়িয়ে নিয়ে আসি। পরেরদিন শুনতে পারি রাতভর নূরকে তারা মারধর করেছে।’

এ বিষয়ে ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আশরাফুল ইসলাম বলেন, ‘দুই পক্ষের মধ্যে টাকা পয়সা সংক্রান্ত বিষয়ে বিরোধ হয়। ঘটনার দুইদিন পর লিখিত অভিযোগ পেয়ে তদন্তে যাই। পরে দুই পক্ষ জানায় তারা নিজেরা বসে মিটমাট করবে। ইউপি সদস্যও একই কথা জানান। কোন ব্যবস্থা না হলে দ্রুত খোঁজ নিয়ে আইনি প্রক্রিয়ায় যাওয়া হবে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!