বিএনপির সঙ্গে এক মঞ্চে যুক্তফ্রন্ট-ঐক্যপ্রক্রিয়া

জনশক্তি, ঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি, সুষ্ঠু নির্বাচনসহ পাঁচ দফা দাবিতে অভিন্ন কর্মসূচি নিয়ে আন্দোলন করতে একমত হয়েছে বিএনপি, যুক্তফ্রন্ট ও জাতীয় ঐক্যপ্রক্রিয়া। এখন থেকে তারা এক মঞ্চে থেকে সরকারবিরোধী আন্দোলন কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শিগগিরই বৃহত্তর ঐক্যের একটি নতুন নামকরণও করবে তারা।

এ ছাড়া বিএনপির ১২ দফা এবং যুক্তফ্রন্ট ও জাতীয় ঐক্যপ্রক্রিয়ার ৯ দফা একত্রিত করে দাবিও ঠিক করা হবে।

গতকাল রবিবার রাতে গুলশানে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের বাসায় বিএনপি, যুক্তফ্রন্ট ও ঐক্যপ্রক্রিয়ার বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠক শেষে যুক্তফ্রন্টের শরিক জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা বিএনপির সঙ্গে ঐক্য করেছি। আগামী দিনে যেকোনো কর্মসূচি আমরা একসঙ্গে পালন করব। এটা ঢাকা হোক কিংবা ঢাকার বাইরে হোক। নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে আমরা যে পাঁচ দফা দিয়েছি তার সঙ্গে আজকে বৈঠকে সবাই ঐকমত্যে পৌঁছেছি। আমরা আগামীতে আন্দোলনের কর্মসূচি ঠিক করব একসঙ্গে বসেই।’

দলগুলোর অন্য দাবিগুলোর মধ্যে আছে—নির্বাচনের আগে সংসদ ভেঙে দেওয়া, প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ, নির্দলীয় সরকার গঠন, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন, সেনাবাহিনীকে ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দিয়ে নির্বাচনের আগে ও পরে মোতায়েন রাখা, ইভিএম ব্যবহার না করা, নিরাপদ সড়কের দাবি ও কোটা সংস্কার আন্দোলনে যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদেরসহ সব রাজনৈতিক বন্দিকে মুক্তি দেওয়া।
রব বলেন, ‘মূল মামলায় জামিনের পরও তিনবারের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে কেন জেলে বন্দি করে রাখা হয়েছে আমরা জানি না। আমরা নির্বাচনের আগে অবশ্যই সকল রাজবন্দির মুক্তি চাই। কোটা আন্দোলন, নিরাপদ সড়ক আন্দোলন ও গায়েবি মামলায় যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তাদের নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে।’

এক প্রশ্নের জবাবে রব বলেন, ‘স্বাধীনতাবিরোধী শক্তিকে বাইরে রেখে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী দেশের সকল অসাম্প্রদায়িক শক্তি, গণতন্ত্রমনা, প্রগতিশীল সকল শক্তির সমন্বয়ে আমরা দেশে একটি বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আজকের বৈঠকে তা আরো স্পষ্ট হলো।’
বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেন, ‘আমরা খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে পাঁচ দফার বিষয়ে একমত হয়েছি। আগামীতে এসব দাবি সরকারকে মানতে বাধ্য করতে আমরা একসঙ্গে আন্দোলনের কর্মসূচি দেব।’

রাত ৯টা থেকে প্রায় দেড় ঘণ্টা ধরে চলা এই বৈঠক উপস্থিত ছিলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, যুক্তফ্রন্টের শরিক জেএসডির আ স ম আবদুর রব, বিকল্পধারার আবদুল মান্নান, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, জাতীয় ঐক্যপ্রক্রিয়ার শরিক গণফোরামের সুব্রত চৌধুরী, মোস্তফা মহসিন মন্টু ও আ ব ম মোস্তফা আমিন।

এ ছাড়া বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বৃহত্তর ঐক্যপ্রক্রিয়া নিয়ে শুরু থেকে কাজ করা বিএনপি সমর্থক পেশাজীবী নেতা গণস্বাস্থ্য সংস্থার ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্রসংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি (সহসভাপতি) সুলতান মো. মনসুর ও আ স ম আবদুর রবের স্ত্রী তানিয়া রব।

প্রসঙ্গত, অধ্যাপক এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্ট ও ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যপ্রক্রিয়ার নেতাদের বাসায় বিভিন্ন সময়ে বৃহত্তর ঐক্য নিয়ে বৈঠক হলেও এই প্রথম বিএনপির শীর্ষপর্যায়ের কোনো নেতার বাসায় বৈঠক হলো।
এর আগ গত ২৫ সেপ্টেম্বর অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরীর বারিধারার বাসায় বৈঠকে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু অংশ নিয়েছিলেন।

জনশক্তি/এমএইচ

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: