বিএনপি নেতাদের বিচার দাবি নাছিমের

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যায় জড়িতদের পৃষ্ঠপোষকতা ও রাজনীতিতে পুনর্বিন্যাস করার দায়ে বিএনপির বিচার দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডে জড়িত ছিল জিয়াউর রহমান। তিনিই পরবর্তীতে খুনি ও স্বাধীনতা বিরোধীদের রাজনৈতিকভাবে লালন পালন করতে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন বিএনপি নামক রাজনৈতিক সংগঠন। দেশের ইতিহাসের এই কলঙ্কজনক অধ্যায় মুছতে বিএনপির বিচার করতে হবে।

বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) ধোলাইখালের ক্রস রোডে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে অসহায়-দুস্থ মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া।

আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, জিয়াউর রহমান খুনিদের পৃষ্ঠপোষকতা করেছিলো, তাদের প্ররোচিত করেছিলো। বঙ্গবন্ধুর খুনিরা পরবর্তীতে দেশি-বিদেশি সংবাদমাধ্যমে ঘোষণা দিয়ে বলেছিলো, ‘আমরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছি, আমাদের বিচার করার ক্ষমতা কারও নাই। আমাদের সঙ্গে জিয়াউর রহমান আছে।’ তিনি আমাদের ইনডেমনিটি দিয়েছেন।

তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান ৭৫ এর খুনিদের দেশে-বিদেশে চাকরি দিয়ে, ব্যবসা-বাণিজ্য দিয়ে পুরস্কৃত করেছিলো, রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা দিয়েছিলো। তারা ফুলেফেঁপে একটি বিশাল দানবের রুপ লাভ করেছিলো। আজকে আমাদের সেই কথা ভুলে গেলে চলবে না। জিয়াউর রহমান, ক্যান্টমেন্টের ছাউনিতে বসে বিএনপি নামক রাজনৈতিক দলের নামে আদর্শ-নীতিহীন, খুনিদের নিয়ে দল গঠন করেছিলো। খালেদা জিয়াও ৭৫ এর খুনিদের রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত করেছে। খুনি ফারুক-রশিদচক্রকে নির্বাচন করার সুযোগ দিয়েছে। খুনিদের পৃষ্ঠপোষকতা করোছিলো বেগম খালেদা জিয়া ও জিয়াউর রহমানের বিএনপি।

বিএনপি সরকার বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী ও স্বাধীনতা বিরোধীদের এমপি-মন্ত্রী বানিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার দল বিএনপি স্বাধীনতা বিরোধীদের রাজনৈতিক আশ্রয় দিয়ে তাদেরকে এমপি বানিয়েছে, মন্ত্রী পদমর্যাদা দিয়েছে। স্বাধীনতা বিরোধীদের গাড়িতে দেশের সম্মান পতাকা তুলে দিয়েছে। এই পতাকা অর্জনে আমাদের লাখ লাখ মানুষ শহীদ হয়েছেন, অসংখ্য বীরাঙ্গনা হয়েছেন।

তিনি বলেন, একাত্তরেও যেমন ঘাতক দালাল ছিল বর্তমানেও তারা আছে। ৭১ এর যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছে জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা। জামায়াত মানুষ হত্যাকারী, যুদ্ধাপরাধী। তারা বাংলাদেশ বিরোধী শক্তি। যুদ্ধাপরাধের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার কারণে জামায়াতের রাজনীতি আজকে নিষিদ্ধ হয়েছে। ঠিক একইভাবে ৭৫ এর খুনিদের পৃষ্ঠপোষকতা, রক্ষা, রাজনীতিতে পুনর্বাসন করার দায়ে, পুরস্কৃত করার অপরাধে বিএনপিকেও বিচার করে রাজনীতি থেকে নিষিদ্ধ করতে হবে। খুনিদের আশ্রয়দাতা, স্বাধীনতা বিরোধীসহ সব দেশ বিরোধী শক্তিকে দলমত নির্বিশেষে রুখে দিতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, ঢাকা মহানগর দ‌ক্ষিণ স্বেচ্ছা‌সেবক লী‌গের সভাপ‌তি কামরুল হাসান রিপন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আজহার, দপ্তর সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক এফ এম শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

কেআরআর

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!