যে কারণে পদত্যাগ করলেন ব্যারিস্টার সুমন

নিজস্ব প্রতিবেদক

মুক্তিযুদ্ধের সময় সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের জন্য গঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর পদ থেকে পদত্যাগ করলেন সুপ্রিমকোর্টের আলোচিত আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

পদত্যাগের কারণ হিসেবে সুমন বলেছেন, সামাজিক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে জড়িত হয়ে যাওয়ায় ট্রাইব্যুনালে সময় দিতে পারছেন না। এ অবস্থায়

সরকারের কোষাগার থেকে বেতন নেয়া অনৈতিক মনে করছেন তিনি। তাই তিনি পদত্যাগ করেছেন।

পদত্যাগের বিষয়টি ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন নিজেই গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

বৃহস্পতিবার প্রসিকিউটর পদ থেকে অব্যাহতি চেয়ে চিফ প্রসিকিউটরের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন।

পদত্যাগপত্রে সুমন লিখেছেন– ‘২০১২ সালের ১৩ নভেম্বর আমি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর হিসেবে যোগদান করি। যোগদানের পর থেকে বিভিন্ন মামলা অত্যন্ত নিষ্ঠার সঙ্গে পরিচালনা করেছি।

ইদানীং বিভিন্ন সামাজিক স্বেচ্ছাসেবামূলক কাজে নিবিড়ভাবে জড়িত হয়ে যাওয়ার কারণে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের মতো রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানে সম্পূর্ণ নিষ্ঠার সঙ্গে সময় দিতে পারছি না।

এমতাবস্থায় সরকারি কোষাগার থেকে বেতন নেয়াকে আমি অনৈতিক বলে মনে করি। এ কারণে আমি বর্তমান পদ থেকে অব্যাহতি প্রার্থনা করছি।’

ব্যারিস্টার সুমন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ছাড়াও হাইকোর্টের একজন আইনজীবী। এ ছাড়া তিনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আলোচিত একজন ব্যক্তি।

এর আগে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর পদ থেকে মোহাম্মদ আলী ও ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজকে অপসারণ করা হয়।

সুমন ফেসবুকে বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা নিয়ে সরব থাকেন। এছাড়া ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনের (আইসিটি) মামলা করে সুমন।

তবে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের কটূক্তির অভিযোগে ব্যারিস্টার সুমনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলাও হয়েছে। রাজধানীর ভাসানটেকের গৌতম কুমার এডবর নামে এক ব্যক্তি মামলাটি করেন।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: