শর্ত দিয়ে লেবাননে কর্মী প্রেরণের সাময়িক স্থগিতাদেশ তুলে নিল সরকার

জনশক্তি রিপোর্ট : প্রায় দুই মাস পর লেবাননে কর্মী পাঠানোর সাময়ীক স্থগিতাদেশ তুলে নিচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। সরকারী সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বৈরুত দূতাবাস ভিসা সত্যায়িত করার কার্যক্রম ইতোমধ্যে চালু করেছে। গত ১৫ অক্টোবর ২০১৮ সোমবার দূতাবাসের হেড অব চ্যান্সারী ও কাউন্সেলর সায়েম আহমেদ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এমনটি জানানো হয়েছে।

তবে ভিসা প্রক্রিয়ার স্বচ্ছতা ফেরাতে কিছু শর্ত জুড়ে দেয়া হয়েছে। দূতাবাসের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ২৮ আগষ্ট ২০১৮ ইং এর আগে লেবাননের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যে সকল ভিসা ইস্যু করেছে, সেই সকল ভিসার ক্ষেত্রেও এসব শর্ত প্রযোজ্য হবে। ভিসা সত্যায়িত করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের সাথে এই তথ্যগুলোও জমা দিতে হবে।

শর্তগুলো হচ্ছে, ১) যে সকল কোম্পানী বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক আনবে তাদের বিস্তারিত তথ্য বাংলাদেশ দুতাবাসকে জানাতে হবে। যেমন – অত্র কোম্পানীর শ্রমিকের মোট চাহিদা, বর্তমানে কতজন শ্রমিক কাজ করছে, আরো শ্রমিকের চাহিদা আছে কিনা, কোম্পানির সুনাম, বেতন-ভাতা, খাবার-বাসস্থানসহ অন্যান্য বৈধ সুবিধাদি এবং চিকিৎসা সুবিধাসহ একজন শ্রমিকের জন্য যেসকল সুবিধা প্রয়োজন তা রয়েছে কিনা এসকল তথ্য দূতাবাসকে জানাতে হবে।

২) বৈরুত দূতাবাসের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ অত্র কোম্পানী পরিদর্শন করে ভিসার সাথে জমা দেওয়া যাবতীয় তথ্য যাচাই বাছাই করার পর সিদ্ধান্ত নিবে। অত্র কম্পানী যথাযথ প্রমানিত হলে কর্মী আনার অনুমতি পাবে।

তবে নতুন ভিসার ক্ষেত্রে ভিসা ইস্যু করার আগেই কোম্পানীগুলোকে বাংলাদেশ দূতাবাসের সাথে যোগাযোগ করে এসকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে দূতাবাসের অনুমতি নিতে হবে।

বাংলাদেশ সরকারের এই নীতিমালাকে স্বাগত জানিয়েছে সাধারণ প্রবাসীরা। তারা মনে করেন এতে নতুন করে যারা লেবানন আসবেন, তারা প্রতারণার হাত থেকে রক্ষা পাবেন।

রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার বলেন, দালালদের হাতে সাধারন প্রবাসীদের প্রতারণা বন্ধ করার লক্ষ্যে সরকার গত আগষ্ট মাসে সাময়িকভাবে ভিসা সত্যায়ন বন্ধ করে। অতঃপর লেবাননে শ্রমিক প্রেরণের জন্য একটি নতুন গাইডলাইন তৈরি করে। সরকার সম্প্রতি সাময়িকভাবে স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে ভিসা সত্যায়ন পূনরায় চালু করেছে। তবে অবশ্যই তা হতে হবে নতুন গাইডলাইন অনুসরণ করে। দূতাবাস আশা প্রকাশ করে যে এর ফলে লেবাননে শ্রমিকদের ভোগান্তি বহুলাংশে হ্রাস পাবে।

জনশক্তি/প্রতিনিধি/জউস

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!