সাভারে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভ

উপজেলা প্রতিবেদক

সাভারে একটি তৈরি পোশাক কারখানায় লেঅফের প্রতিবাদে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে কারখানাটির প্রায় আট শতাধিক শ্রমিক। এ ঘটনায় প্রায় তিন ঘণ্টা সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকায় মহাসড়কের উভয়পাশে দীর্ঘ প্রায় পাঁচ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়। এসময় শত শত যানবাহন আটকে পড়ায় চরম দুর্ভোগে পড়ে সাধারণ যাত্রীরা।

খবর পেয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশ ও শিল্প পুলিশের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে শ্রমিকদেরকে বুঝিয়ে মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। প্রায় তিন ঘণ্টা দফায় দফায় চেষ্টা চালিয়ে মালিক পক্ষের সাথে কথা বলে শ্রমিকদেরকে আশ্বস্ত করা হলে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা অবরোধ তুলে নেয়।

পুলিশ ও বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, সাভারের আমিনবাজার সালেহপুর এলাকায় অবস্থিত ব্রান্ডো ইকো এ্যাপারেলস লিমিটেড নামক তৈরি পোশাক কারখানায় বৃহস্পতিবার থেকে ১৫ দিনের লেঅফ ঘোষনা করে ঘোষণা। এর প্রতিবাদে কারখানা ছুটির পর শ্রমিকরা একজোট হয়ে বিক্ষোভ শুরু করে। একপর্যায়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টা থেকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে কারখানাটির প্রায় আট শতাধিক শ্রমিক।

এসময় শ্রমিকরা কারখানা যখন তখন বন্ধ করা যাবেনা, কারখানা বন্ধ রাখলেও শ্রমিকদের পূর্ণ বেতন পরিশোধ এবং বন্ধ ঘোষণা করা হলে শ্রম আইন অনুযায়ী সকল ধরনের পাওনাদি পরিশোধ করার বিষয়ে তিন দফা দাবিতে মহাসড়কে অবস্থান করতে থাকে। এ ঘটনায় মহাসড়কের উভয়পাশে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হলে আটকা পড়ে কয়েক হাজার যানবাহন। প্রায় তিন ঘণ্টা যানজটে আটকে পড়ে অনেককেই পায়ে হেটে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হতে দেখা গেছে।

বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা জানায়, মাঝে মাঝেই কারখানা ঘোষণা কাজ না থাকার অজুহাত দেখিয়ে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ফ্লোরে লেঅফ ঘোষণা করে। কিন্তু লেঅফ চলাকালীন শ্রমিকদেরকে তাদের প্রাপ্য বেতন পরিশোধ করা হয়না বিধায় তারা আন্দোলন করতে বাধ্য হয়েছেন।

সাভার থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, শ্রমিক ও মালিক পক্ষের সাথে আলোচনা করে আগামীকাল কারখানা খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা আশ্বস্ত হয়ে রাত সাড়ে ৯ টার দিকে তাদের অবরোধ তুলে নেয়ায় বর্তমানে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: