স্থবিবরতার পর আজ সাভারের সড়কে স্বস্তি

সাভার প্রতিনিধি

রাজধানী ঢাকার প্রবেশমুখ সাভারের সড়ক গুলোতে আজ যানচলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। তবে কোরবানীর ঈদকে ঘিরে গত বৃহস্পতিবার সরকার লকডাউন শিথিল করে। এরপর থেকেই সাভারের সব গুলো সড়কে ঈদে ঘরমুখো মানুষের ভিড় ও পশুবাহী গাড়ির চাপ বাড়তে থাকে। লকডাউন শিথিলের প্রথম দিন (বৃহস্পতিবার) রাত থেকেই তীব্র যানজটে স্থবিরতা আসে সাভারের সড়কে। ঘন্টার পর ঘন্টা যানজট ভোগান্তিতে পড়ে দুর্ভোগ চরমে ওঠে সাধারণ মানুষের। তীব্র গরমে ট্রাকে মারাও যায় পশু।

দেখা গেছে, শনিবার সকাল থেকেই সাভারের উত্তরবঙ্গ রুটের নবীনগর-চন্দ্রা, উত্তর-দক্ষিণবঙ্গ রুটের টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড ও দক্ষিণবঙ্গ রুটের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে যানচলাচল ছিলো স্বাভাবিক। বৃহস্পতিবার রাত থেকে তীব্র যানজট থাকলেও আজ চিত্র উল্টো। মূলত গতকাল সন্ধ্যার পর থেকেই সাভারের সড়ক গুলোতে যানবাহনের চাপ কমতে থাকে।

সবচেয়ে ব্যস্ততম নবীনগর-চন্দ্রা ও টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কের বাইপাইল ত্রিমোড় ছিলো ফাঁকা। এমনকি সিগনালেও গাড়ির দীর্ঘসারি দেখা যায়নি। খানাখন্দ আর পানি জমে থাকায় সার্বক্ষণিক যানজট লেগে থাকা টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কেও ছিলো না যানবাহনের চাপ।

বাইপাইল ট্রাফিক পুলিশের ইন্সপেক্টর খসরু পারভেজ বলেন, রাতের বেলা কখন থেকে যানজট নাই আমি বলতে পারবো না। বাট এখন টোটালি নরমাল। একেবারেই নরমালের চাইতেও নরমাল। আমাদের ট্রাফিক পুলিশের ডেপ্লয় ছিলো টুয়েন্টিফোর আওয়ারস। এক মিনিটের জন্যও আমাদের পুলিশ রাস্তা ছাড়া ছিলো না। যার দরুন গতকালকে যে প্রবলেমটা হয়েছে। ওই প্রবলেমটা আর আজকে হয় নাই। আমাদের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা একটি ভালো প্রোগ্রাম করেছেন। সেই জন্য আর আজকে সমস্যা হয় নাই।’

প্রসঙ্গত, গতকাল ভোর থেকেই সাভারে নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের নবীনগর থেকে বাড়াইপাড়া পর্যন্ত প্রায় ১৮ কিলোমিটার, ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভার থেকে নবীনগর পর্যন্ত আরিচামুখী লেনে ৮ কিলোমিটার ও গেন্ডা থেকে হেমায়েতপুর ৬ কিলোমিটার এবং টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কে আশুলিয়া বাজার থেকে ধউর ৩ কিলোমিটার ও জিরাবো থেকে বাইপাইল পর্যন্ত প্রায় ৭ কিলোমিটার সড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!