দুই প্রকল্পে ৫১০০ কোটি টাকা ঋণ দেবে বিশ্বব্যাংক

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনা মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্ত জনগণের দক্ষতা উন্নয়ন ও দরিদ্রদের জীবিকা নির্বাহে সহায়তা করতে বাংলাদেশকে দুটি প্রকল্পে ৬০ কোটি ডলার ঋণ দেবে বিশ্বব্যাংক। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ ৫ হাজার ১০০ কোটি টাকা (প্রতি ডলার ৮৫ টাকা হিসেবে)। সংস্থাটির প্রধান কার্যালয় সম্প্রতি এ ঋণ অনুমোদন করেছে। পাঁচ বছরের গ্রেস পিরিয়ডসহ ৩০ বছরে এ ঋণ পরিশোধ করতে হবে।

শুক্রবার (২১ মে) বিশ্বব্যাংকের ঢাকা অফিস থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, এ ঋণের অর্থে প্রায় ১৭ লাখ ৫০ হাজার দরিদ্র মানুষকে সহায়তা করা হবে।

বিশ্বব্যাংকের বাংলাদেশ ও ভুটান কার্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক দনদন চেন বলেছেন, ‘বাংলাদেশে কোভিড-১৯ মহামারিতে হাজার হাজার মানুষের জীবনযাত্রায় প্রভাব পড়েছে। বিশেষ করে, নারী শ্রমিক, যুবক এবং প্রবাসফেরত জনগোষ্ঠীর জীবনযাত্রাকে প্রভাবিত করেছে। এই দুটি প্রকল্প গ্রামীণ দরিদ্র জনগণের ক্ষমতায়ন করবে ও তাদের ভবিষ্যৎ কর্মজীবনের জন্য প্রস্তুত করবে।‘

‘অ্যাকসিলারেটিং অ্যান্ড স্ট্রেনদেনিং স্কিলস ফর ইকোনমিক ট্রান্সফরমেশন (এএসএসইটি)’ শীর্ষক প্রকল্পে ৩০ কোটি বা ৩০০ মিলিয় ডলার ঋণ অনুমোদন করেছে সংস্থাটি। এ প্রকল্পে বাংলাদেশি মুদ্রায় ২ হাজার ৫৫০ কোটি টাকা পাচ্ছে বিশ্বব্যাংক থেকে। এ প্রকল্পের মাধ্যমে ১০ লাখেরও বেশি যুবক এবং শ্রমিককে ভবিষ্যতের জন্য দক্ষ করে গড়ে তোলা হবে। বিশেষ করে, এ প্রকল্পে যুব, নারী এবং সুবিধাবঞ্চিতদের সহায়তা করা হবে।

এছাড়া, ‘রেসিলিয়েন্স, এন্টারপ্রেনারশিপ অ‌্যান্ড লাইভলিভ ইমপ্রুভমেন্ট (আরইএলআই)’ প্রকল্পে ৩০ কোটি বা ৩০০ মিলিয়ন ডলার অর্থ দিচ্ছে আন্তর্জাতিক সংস্থাটি। প্রকল্পটির মাধ্যমে ২০ জেলার ৩ হাজার ২০০ গ্রামের ৭ লাখ ৫০ হাজার দরিদ্র ও দুর্বল গ্রামীণ মানুষের জীবন-জীবিকা উন্নয়নে সহায়তা করা হবে।

বিশ্বব্যাংক জানায়, প্রকল্পটি গ্রামীণ জনগোষ্ঠীকে সংগঠিত করা, তাদের সক্ষমতা তৈরি এবং সঞ্চয় ও ক্ষুদ্র ঋণের জন্য কমিউনিটি পরিকল্পনাগুলোর পাশাপাশি জলবায়ু-নির্ভরশীল অবকাঠামোকে শক্তিশালী করতে সহায়তা করবে। এই প্রকল্পে দরিদ্র ও অতি দরিদ্র, নারী এবং যুবকদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

কেআরআর

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: