সিনেমার নামকরণ নিয়ে প্রতিবাদ, অক্ষয় কুমারের কুশপুত্তলিকা দাহ

বিনোদন ডেস্ক

বিজেপি ঘনিষ্ঠ অক্ষয় কুমারের পরবর্তী ছবি ‘পৃথ্বীরাজ’ নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই সরব ভারতের কিছু উগ্র গোষ্ঠী। ইতিমধ্যে প্রযোজনা সংস্থাকে ছবিতে কিছু সংশোধনের হুমকি দিয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে।
এর মাঝে বৃহস্পতিবার রাতে চণ্ডীগড়ে অখিল ভারতীয় ক্ষত্রিয় মহাসভা অক্ষয় কুমারের কুশপুতুল পুড়িয়ে ফের প্রতিবাদ জানালো। তাদের মতে, ছবির নাম শুধু ‘পৃথ্বীরাজ’ রেখে ‘মহান সম্রাট’কে অপমান করা হচ্ছে।

মহাসভা বলছে, ছবির নাম হওয়া উচিত ‘হিন্দু সম্রাট পৃথ্বীরাজ চৌহান’ বা ‘সম্রাট পৃথ্বীরাজ চৌহান’।

তাদের দাবি, সর্বশেষ স্বাধীন হিন্দু সম্রাট হিসেবে রাজত্ব করেছেন পৃথ্বীরাজ চৌহান। তাই সম্রাটের ওপর সম্মান জানিয়ে ছবির নাম নির্বাচন করা উচিত। আরও দাবি জানায়, ছবি মুক্তির আগে তা দেখাতে হবে ক্ষত্রিয় ও রাজপুত সমাজের নেতৃত্ব স্থানীয়দের। তারাই ঠিক করবে সিনেমাটি আদৌ প্রদর্শনের যোগ্য কি-না!

ছবি তৈরির সময় ‘ইতিহাসে’ কোনো পরিবর্তন করা হয়েছে কি-না, তা দেখাই হবে তাদের লক্ষ্য।

অখিল ভারতীয় ক্ষত্রিয় মহাসভার সদস্যরা আরও দাবি করেছেন, ছবির নির্মাতারা যদি তাদের দাবি মেনে না নেয়, তবে ‘পৃথ্বীরাজ’কেও ‘যোধা আকবর’, ‘পদ্মাবত’-এর মতো বিরোধের মুখোমুখি হতে হবে।

চন্দ্রপ্রকাশ দ্বিবেদীর পরিচালনায় ও আদিত্য চোপড়ার ইয়াশরাজ ফিল্মসের ব্যানারে আসছে ‘পৃথ্বীরাজ’। এই ছবিতে অক্ষয়ের বিপরীতে অভিনয় করছেন সাবেক বিশ্বসুন্দরী মানুষী চিল্লার।

জুনের শুরুতেই একই ইস্যুতে ছবির নামে একটি জনস্বার্থ মামলা জারি করেছে করনি সেনা। দলের যুব শাখার সভাপতি সুরজিৎ সিং রাঠোর ছবির নির্মাতাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধি অনুসারে অভিযোগ আনেন।

করনি সেনা যে তিনটি শর্ত দেয়— ছবি মুক্তির আগে তা স্পেশাল স্ক্রিনিং করতে হবে, ছবিতে রাজপুত সমাজকে দেখানোর ওপর জোর দিতে হবে এবং শিরোনামে ‘বীর যোদ্ধা সম্রাট পৃথ্বীরাজ চৌহান’ ব্যবহার করতে হবে।

কেআরআর

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
error: Content is protected !!